Home / ত্বকের যত্ন / ঘুমোনোর আগে নিজের যত্নে

ঘুমোনোর আগে নিজের যত্নে

ঘুমোনোর আগে নিজের যত্নে । রাতে আমাদের রাজ্যের আলস্য ভর করে। নিজের যত্ন (Care) না নিয়েই রাতে কোনোমতে বিছানায় মুখ থুবড়ে পড়ে যাওয়া আর পরদিন সকালে উঠে ত্বকের অবস্থা দেখে তো মনটাই খারাপ। আবার প্রস্তুতি নিতে শুরু করা। সুন্দর ত্বক (Skin) পেতে হলে রাতে ঘুমোনোর আগে কয়েকটি ভালো অভ্যাস অনুসরণ করা জরুরি।নিজের যত্নে

ঘুমোনোর আগে নিজের যত্নে

১। প্রথমেই ভালো ক্লিনজারে মুখ ধোবেন
ঘুমোনোর আগে মুখ ধুয়ে নেওয়ার অভ্যাসটা গড়ে তুলতে হবে। মেকআপের ক্ষেত্রে ডাবল ক্লিনজিং করা জরুরি। সেক্ষেত্রে একটি কটন প্যাডে মাইসেলার ওয়াটার, নারকেল তেল (Coconut oil) কিংবা অলিভ অয়েল নিয়ে ভালো করে মেকআপ তুলে নিতে হবে। আবার অনেকে আছেন ঘরেই থাকেন ও মেকআপ করেন না। তাদের জন্যও রাতে ঘুমোনোর আগে মুখ ধুয়ে নেওয়া জরুরি। সারা দিনের জমানো ঘাম, তেল, ময়লা যাতে রোমকূপে জমে না যায়, তার জন্য বেশ ভালো একটি ফেসওয়াশ (Facewash) দিয়ে মুখ ধুয়ে নেওয়া উচিত।

২। ময়েশ্চারাইজার লাগাবেন মুখ ধুয়ে
ফেসওয়াশ আমাদের ত্বককে শুষ্ক করে ফেলে। তাই মুখ ধোওয়ার পর হালকা ভেজা মুখেই ময়েশ্চারাইজার (Moisturizer) লাগিয়ে নিতে পারেন। এতে আপনার ত্বক বেশ লম্বা সময় পর্যন্ত হাইড্রেটেড (Hydrated) থাকবে। চেষ্টা করবেন রাতে ঘুমানোর বেশ কিছুক্ষণ আগেই একটু ভারি ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করার। এতে আপনার ত্বক (Skin) ময়েশ্চারাইজার শুষে নেওয়ার সুযোগ পাবে ও বিছানায় তা লেগে যাবে না।

৩। বালিশের কাভার পালটে নিন
আপনার বালিশের কাভার কদিন পরপর পালটে নেওয়ার চেষ্টা করুন। চেষ্টা করবেন কিছুদিন পরপর বালিশের কভার বদলে নেওয়ার। একই বালিশের কভার না ধুয়ে বেশি দিন ব্যবহার করলে এতে ধুলাময়লা ও ব্যাকটেরিয়া (Bacteria) বাসা বাঁধে। ঘুমানোর সময় আমাদের ত্বক (Skin) এসব ব্যাকটেরিয়া ও ময়লার সংস্পর্শে আসে, যা ব্রণ ও র‍্যাশের মতো সমস্যা তৈরি করে। এ ছাড়া যাঁদের খুশকির সমস্যা আছে।

৪। ঘরে মৃদু আলোয় ঘুম
উজ্জ্বল (Bright)আলো আমাদের ঘুম নষ্ট করে দেয়। তাই রাতের বেলা ঘরের আলো কমিয়ে রাখুন। এতে ঘুমে ব্যাঘাত ঘটবে না। ঘুমানোর আগে মুঠোফোন থেকে দূরে থাকুন। একান্তই সম্ভব না হলে ফোনে ব্লু লাইট ফিল্টার ব্যবহার করতে পারেন। চেষ্টা করবেন তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে যাওয়ার। এতে প্রতিদিন সাত-আট ঘণ্টা ঘুম দেওয়া সহজ হবে। অনেক গবেষণায় উঠে এসেছে, যাঁরা প্রতিদিন সাত-আট ঘণ্টা ঘুমান, তাঁদের ত্বকে (Skin) কোলাজেনের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। ফলে বয়সের ছাপ বেশ দেরিতে পড়ে। আমাদের প্রতিদিনের জীবন থেকে ১০-১৫ মিনিট সময় বের করে নিয়ে যদি দিন শেষে এভাবে ত্বকের যত্ন (Care) করা হয়, তবে সেই যত্নের প্রতিফলন (Reflection) আপনি আপনার ত্বকেই দেখতে পাবেন।

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কাছে কেমন লেগেছে এবং আপনার যদি কোনো প্রশ্ন অথবা মতামত থেকে থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। আর আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে শেয়ার করুন। সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Check Also

হাত ও পায়ের যত্ন

শীতে খসখসে হাত ও পায়ের যত্ন নিবেন যেভাবে

শীতে খসখসে হাত ও পায়ের যত্ন নিবেন যেভাবে। শীত এলেই প্রকৃতি বদলে যায়। প্রকৃতির সেই ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *